শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯

অন্যের দুর্নীতির দায় সরকারি ব্যাংকের ঘাড়ে

প্রায় বছর তিনেক ধরে ধুঁকছে ব্যাংকবহির্ভূত পাঁচ আর্থিক প্রতিষ্ঠান। ওই প্রতিষ্ঠানগুলোর মালিকরাই ঋণের নামে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এখন জমানো অর্থ ফেরত পেতে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন আমানতকারীরা। মালিকদের দুর্নীতির কারণে রুগ্ন ওইসব প্রতিষ্ঠানেও অর্থ জমা রেখেছে সরকারি ৫ ব্যাংক। ব্যাংকগুলোর প্রায় এক হাজার কোটি টাকা আটকে গেছে। সেই টাকা উদ্ধারে কোনো আশা দেখছে না ব্যাংকগুলো।

সংশ্লিষ্টরা জানান, অস্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় কর্মকর্তারা ওই সব প্রতিষ্ঠানে টাকা রাখছেন। এভাবে টাকা আটকে গেলেও জড়িতদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না ব্যাংক। আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে পিপলস লিজিং, বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফাইন্যান্স কোম্পানি (বিআইএফসি), ইন্টারন্যাশনাল লিজিং, ফার্স্ট ফাইন্যান্স ও এফএএস ফাইন্যান্স।

এখানে আমানত রেখে ও কলমানিতে টাকা দিয়ে তা আর আদায় করতে পারছে না সরকারি পাঁচ ব্যাংক। কিন্তু এ টাকা খেলাপি হিসেবে দেখানোর নিয়ম নেই।


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত