সোমবার, ২৩ মে ২০২২

আমার ইতিহাস : ফরিদা পারভীন দিবা

আমার বোনের সম্ভ্রমে কেনা আর আমার ভাইয়ের রক্তে ভেজা
বাংলা মায়ের বুক,
সেই মাটিতো খাঁটির চেয়েও খাঁটি
জানে আজ সারা বিশ্ব আর
বিশ্বের কোটি কোটি লোক।

আমার মায়ের মুখের ভাষা
কেড়ে নিতে চেয়েছিলো যারা
তারা তো মানুষ নয় নরপিশাচ,
ভুলবেনা তোদের করবেনা ক্ষমা
যতদিন রবে বাংলার ঘরে ঘরে
বাঙালীর দেহে নিঃশ্বাস প্রশ্বাস।

৭ই মার্চে জাতিরজনক ঘোষনা দিলেন স্বাধীনতার কথা,
এবারের সংগ্রাম মুক্তির সংগ্রাম
বজ্রকন্ঠে শুনিয়ে দিলেন স্বাধীনতার অমর কবিতা।
ইতিহাস সাক্ষী দিবে যতদিন রবে
বাংলার বুকে সূর্যাস্ত আর সূর্যোদয়,
ততদিন রবে মহা গৌরবে
এই মাটিতেই লাল সবুজের পতাকা ধ্বনিত হবে জয়বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধুর জয়।

পঁচিশে মার্চ কালো রাতে বাঙালীর প্রানের প্রান জাতিরজনক বঙ্গবন্ধুকে
নিয়ে গিয়েছিলো পাকিস্তান এর কারাগারে রাখতে পারেনি,
নরপিশাচেরা নিঃশেষ করতে চেয়েছিল বাঙালি জাতিকে কিন্তু ওরা তাও করতে পারেনি।
১৯৪৭ থেকে ১৯৭১ পর্যন্ত রক্ত দিয়ে বাঙালিরা করে গেছে অন্যায়ের
চরম প্রতিবাদ,
রক্ত দিয়েই বীজ বুনেছে
রক্তে দিয়েই করেছে বাঙালি
ন্যায় প্রতিষ্ঠা স্বধীনতার আবাদ।

শত শোকতাপ সহ্যকরা জাতি মোরা
অনাহারে অর্ধাহারে কঠোর পরিশ্রমে
বেঁচে থাকি বারো মাস,
আমি বাঙালি বাংলা আমার ভাষা
আমি বাংলায় গানগাই বাংলায় কাঁদি-হাসি এটাই আমার ইতিহাস।


© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত