বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই ২০২০

ইতালিতে প্রায় দুই লাখ প্রবাসী বাংলাদেশি ভালো নেই

প্রাণঘাতী করোনায় বিধ্বস্ত ইতালিতে প্রায় দুই লাখ প্রবাসী বাংলাদেশি ভালো নেই। দেশটিতে প্রায় সাড়ে ৬ কোটি মানুষ গৃহবন্দি। তাদের মধ্যে রয়েছেন প্রবাসীরাও। বাইরে বেরুলেই জেল-জরিমানার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এ অবস্থায় প্রবাসী বাংলাদেশিরা থাকা-খাওয়ার ব্যয় নির্বাহ নিয়ে পড়েছেন দুশ্চিন্তায়। এরই মধ্যে এক বাংলাদেশি করোনায় মারা যাওয়ায় বাংলাদেশি কমিউনিটিতে দেখা দিয়েছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা।
অর্থনৈতিকভাবে ইউরোপের অন্যতম শক্তিশালী দেশ ইতালি এখন কার্যত মৃত্যুপুরী। পর্যটকশূন্য পুরো দেশ। কোথাও নেই কোলাহল। ফার্মেসি ও সুপার মার্কেট ছাড়া সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ।
পুরো দেশ ‘রেড জোন’-এর মধ্যে রয়েছে দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে। গত শনিবার সরকার সবকিছু বন্ধের সময় বাড়িয়েছে ৩ এপ্রিল পর্যন্ত। দেশের পুরো কাঠামো ভেঙে পড়ার উপক্রম। অর্থনৈতিক কার্যক্রম অচল হয়ে পড়েছে। এক অনিশ্চিত সংকটের দিকে এগোচ্ছে ইতালি। ইতালীয়রা বলছেন, তারা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়েও এমন সংকট দেখেননি।
প্রবাসী বাংলাদেশিরা অনেকটা ইতালির সংস্কৃতির সঙ্গে মিশে আছেন। আশির দশক থেকে ইতালিতে বাংলাদেশি প্রবাসীদের পদচারণা শুরু। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সংখ্যায় যেমন বেড়েছে, তেমনি বেড়েছে ইতালির বিভিন্ন সংস্কৃতির সঙ্গে সখ্য। প্রবাসীরা ইতালিকে ‘সেকেন্ড হোম’ হিসেবে বিবেচনা করেন। তাদের রেমিট্যান্সের মাধ্যমে দেশ যেমন লাভবান হয়, তেমনি একজন প্রবাসীর উপার্জনের মাধ্যমে নিজ পরিবার, আত্মীয়স্বজনসহ অনেকেই উপকৃত হয়ে থাকেন।
ইতালিতে এপ্রিলে সাধারণত গ্রীষ্ফ্মকাল শুরু হয়। ব্যবসা-বাণিজ্য চলে পুরোদমে। কর্মসংস্থানও বাড়ে। তবে এবার করোনার ছোবলে ইতালিতে ভিন্ন চিত্র। কার্যত অবরুদ্ধ দেশ। প্রবাসী বাংলাদেশিরাও এতে আতঙ্কিত। করোনার হানা সবকিছু ওলট-পালট করে দিয়েছে। কর্মজীবী বাংলাদেশিরা নিজের মাসিক খরচের টাকা হাতে রেখে সাধারণত মাসের প্রথম দিকেই বাকি অর্থ দেশে পাঠান। চলতি মাসেও একই অবস্থা ছিল। তবে দেশব্যাপী রেড জোন ঘোষণা এবং সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ করায় কর্মহীন হয়ে পড়েছেন সব প্রবাসী। সবাই এখন গৃহবন্দি। দোকান বন্ধ, ব্যবসা নেই। তবে বাড়ি ভাড়া, দোকান ভাড়া দিতেই হবে। সঙ্গে রয়েছে পারিবারিক ব্যয়, ব্যক্তিগত খরচ ও দেশে অর্থ পাঠানোর চিন্তা। সব মিলিয়ে উদ্বিগ্ন ইতালি প্রবাসী বাংলাদেশিরা।
ইতালিতে ৮ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত বলে খবর পাওয়া গেছে। গত শুক্রবার মিলান শহরে মারা গেছেন এক বাংলাদেশি। এ ঘটনায় প্রবাসী কমিউনিটিতে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত