শুক্রবার, ২১ জানুয়ারি ২০২২

ইতালির দক্ষিণাঞ্চলে ৯৭ টাকায় একটা সুন্দর বাড়ি কেনা যাবে

যেকোনো দেশে বাড়ি কিনতে কয়েক লাখ টাকা প্রয়োজন। কিন্তু ইতালির দক্ষিণাঞ্চলে মাত্র এক ইউরো বা ৯৭ টাকায় একটা সুন্দর বাড়ি পাওয়া যাবে।

সত্তরের দশকের মাঝামাঝি ইতালির উত্তর অঞ্চলের শিল্প বাণিজ্যে সমৃদ্ধ হয়ে উঠলেও, পিছিয়ে ছিল দক্ষিণাঞ্চল। ফলে ভৌগোলিক এবং রাজনৈতিক নানা কারণে ইতালির বেশ কিছু অঞ্চল সেভাবে বিকাশ লাভ করতে পারেনি। দক্ষিণ অঞ্চলের মানুষরা জীবিকার সন্ধানে অন্যান্য জায়গায় চলে যায়। শুধু পড়ে থাকে তাদের পরিত্যক্ত বাড়ি। তাই মাত্র ৯৭ টাকাতেই এখানকার স্থানীয় প্রশাসনের তরফ থেকে বাড়িগুলির বিক্রি করে দেওয়া হচ্ছে। এর মাধ্যমে প্রত্যন্ত অঞ্চলে জনবসতি ফিরিয়ে আনাই মূল উদ্দেশ্য।

মাত্র ৯৭ টাকাতে বাড়ি বিক্রির পরিকল্পনা প্রথম শুরু হয় ইতালির দক্ষিণের আব্রুজ্জো প্রদেশে। বর্তমানে পাশাপাশি আরও ছয়টি প্রদেশের সরকার একই রাস্তায় হাঁটছেন। আব্রুজ্জো প্রদেশের বেশ কয়েকটা পৌরসভায় ১৯৩০ সাল নাগাদ জনসংখ্যা ছিল প্রায় ১৩ হাজার এর কাছে। কিন্তু বর্তমানে সেই সংখ্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় ৭ হাজার।

মূলত এখানকার মানুষ শিল্পসমৃদ্ধ অঞ্চলে পাড়ি জমানোর কারণে, এসব এলাকা জনসংকটে পড়েছে। সেই সংকট দূর করতে বাড়ি বিক্রির প্রকল্প চালু হয়েছে এই অঞ্চলগুলোতে।

তবে এই বাড়ি শুধুমাত্র ইতালির বাসিন্দারা নয়, বিদেশিরাও কিনতে পারবেন। এখানে বাড়ি কেনার ক্ষেত্রে বিশেষ কিছু নিয়ম রয়েছে। প্রথমেই নির্দিষ্ট পৌরসভার ওয়েবসাইটে যাবতীয় তথ্য দিয়ে আবেদন করতে হবে। কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে নির্বাচিত হলে ক্রেতাকে বাড়ি পছন্দ করতে দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়।

বাড়ি ক্রেতার পছন্দ হলেই , পৌরসভার সাথে চুক্তিপত্র স্বাক্ষর হবে। তবে ক্রেতাকে বাড়িটি মাত্র ৯৭ টাকায় দেওয়া হলেও, সিকিউরিটি মানি হিসেবে পৌরসভার কাছে জমা রাখতে হবে প্রায় ৫ হাজার ইউরো। দুই বছরের মধ্যে ক্রেতাকে নিজের খরচায় বাড়িটি মেরামত করে বসবাস যোগ্য করে তুলতে হবে।

পৌরসভার তরফ থেকে গ্যাস, বিদ্যুৎ এবং জলের সমস্ত রকম ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে। বাড়ির সমস্ত রকম সংস্কার সম্পূর্ণ হলে পৌরসভার কাছে জমা রাখা ৫ হাজার ইউরো ফেরত পাবেন ক্রেতা।


© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত