মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২

ঈশ্বরের সান্নিধ্যে

আজমেরিনা শাহানী

ঈশ্বরের সাথে আমার কথা হয় রোজ…
যতবার নীলের তরঙ্গে চোখ রাখি,
নৈসর্গের শান্ত সৌন্দর্যের উপমায় স্নাত হই
যখনি তৃপ্তিময় উষ্ণ চোখের আরামে
পেজাতুলোর মত ভাসতে থাকি শূন্যে-
আমি ঈশ্বরকে খুঁজে পাই -এমন শ্বাশত প্রকৃতির বুকে।

পাহাড়-নদী-সমুদ্রে – আকাশের মিতালীর মত –
শীতের জমাটবাঁধা ধুলোর গায়-হাওয়ার শিসে-
আঁধার রাতের শিশির ভেজা বনের মিশ্রগন্ধে
আমি ঈশ্বরকে খুঁজে পাই রোজ…
গ্রীষ্মের প্রচন্ড খরায়, পিপাসার্ত পথিকের সকরুণ ক্লান্তিতে
বর্ষার তুমুল বর্ষনে শ্রান্তির পরষে
শরতের উদারতায়, হেমন্তের নব ফসলের আগমনে
কৃষকের ঠোঁটের স্মিত হাসিতে-
বিপন্নের শীতার্ত শরীরে – বসন্তের নগ্ন-কচি শাখে-
নিস্বর্গের মানচিত্র ভরে –
আমি ঈশ্বরকে খুঁজে পাই রোজ…
সত্য-ন্যয় ও সাম্যের আঁচলেও স্থিত ঈশ্বরের ছায়া
প্রান্তিক জনপদ থেকে ছিন্নমূল আর পতিত ভ্রুণের বীজে-

উদ্বাস্তুর শীর্ণ শরীরে-জীবিতের নিঃশ্বাসে –
মৃতদের আত্মাশূন্য ছায়ায় এবং
স্বর্গের স্থিত উন্মীলিত বিষ্ময়ের ভেতর
আমি ঈশ্বর কে দেখি রোজ…
আর্তের, অনস্তিত্বের গোঙ্গানির স্বরে-
অন্ধ বিবেকের কপাটবন্ধ ঘরে-
বর্ণবাদ ও জাতিবাদের স্বরব মিছিলের প্লাকার্ডে-
চিরায়ত সমাজপতিদের নিষ্পেষনে –
বঞ্চিতের যন্ত্রনাবিদ্ধ কংকালে-
দুর্বলের কনিষ্ঠ পেশীতে,অসহায়-বিপন্নের
জীর্ণ আচ্ছাদনের ভাঁজে ভাঁজে-
সহস্র ভাগ্যহতের পুড়ে যাওয়া নির্দয় দৃষ্টির মাঝে
আমি ঈশ্বর কে দেখি রোজ…!

নৈঃশব্দের মসৃনস্পর্ষে-ঝরা পাতার মর্মরে-
উদিত সূর্যের হাসিতে- জোছনায় প্রথম প্রহরে-
নক্ষত্রপুঞ্জের গোপন সম্ভারে -অস্ফুট ফুলের কানাকানিতে-

শুনি ঈশ্বরের মহিমার গান
ধূ-ধূ শশ্মানের ধুম্রবাষ্পে,
শবের আত্মার নীরব গোঙ্গানির আর্তনাদে-
পবিত্র সমাধির তৃনভূমিতলে, ধূসর কাফনের শুভ্রতায়-
আমার সহস্ররকমের অন্তর্দৃষ্টির গভীরতা দিয়ে
অনুভব করি ঈশ্বরের সান্নিধ্য…
আমার সহস্ররকমের শ্রুতি নিয়ে আমি শুনি
ঈশ্বরের বিচিত্র কলরব…


© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত