রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

ঐতিহ্য ও আধুনিকতার মেলবন্ধনে ‘নান্দিক’-এর যাত্রা শুরু

২৬ জানুয়ারি শনিবার বিকেল ৫টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সালাম মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছিল বর্ণাঢ্য এক উৎসব। উৎসবটি ‘নান্দিক’-এর প্রকাশনাকে ঘিরে। ‘ঐতিহ্য ও আধুনিকতার মেলবন্ধন’ শ্লোগানে বর্ণাঢ্য কলেবরে নান্দনিক প্রচ্ছদে প্রকাশ পেয়েছে সাহিত্য ও সংস্কৃতির ত্রৈমাসিক পত্রিকা ‘নান্দিক’। পত্রিকাটির সম্পাদক নন্দিত কবি ইসমত শিল্পী।

‘নান্দিক’-এর যাত্রাকে ঘিরে সেদিনের আয়োজনটি পরিণত হয় দেশবরেণ্য কবি-সাহিত্যিক ও সংস্কৃতিজনদের মিলনমেলায়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম। অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ড. হায়াৎ মামুদ, নাট্যজন মামুনুর রশীদ এবং সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছসহ সাহিত্য-সংস্কৃতির বিশিষ্টজনেরা। বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশানের সাবেক সেক্রেটারি জেনারেল ও নান্দিকের উপদেষ্টা সম্পাদক আকতারুজ্জামানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নান্দিক সম্পাদক ইসমত শিল্পী।

প্রকাশনা উৎসবে উপস্থিত হয়ে অতিথিরা নান্দিকের পথযাত্রায় শুভকামনা জানান। এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতীয় অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘এ ধরণের প্রকাশনা আমাদের সাহিত্যের বিকাশ ও পরিচর্যায় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। নান্দিকও তার অংশীদার হবে বলে আমার বিশ্বাস। আমি ‘নান্দিক’-এর জন্য শুভকামনা এবং এর সমৃদ্ধি কামনা করছি। সেই সাথে এ ধরণের সৃজনকর্ম নিয়ে নিবেদিত থাকার জন্য এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।’

অধ্যাপক ড. হায়াৎ মামুদ বলেন, ‘নান্দিক সত্যিকার অর্থে একটি চমৎকার উদ্যোগ। আমি অত্যন্ত আনন্দিত যে ইসমত শিল্পীর হাতে এরকম একটি মহৎ কাজ এগিয়ে যাচ্ছে। সাহিত্য ও সংস্কৃতি চর্চার সঙ্গে থাকলে সত্যিকারের মানুষ হয়ে ওঠা যায়। তাতে করে মানুষ ও সমাজ উপকৃত হয়।’

নাট্যজন মামুনুর রশীদ বলেন, ‘এটি একটি দুঃসাহসী কাজ।’ আর এই কাজের জন্য তিনি নান্দিক-এর সাথে জড়িত সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।


© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত