শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

Advertisement

করোনা পরীক্ষার ফল নেগেটিভ হলেও লাশ পেতে দুর্ভোগ

Advertisement

‘আমার ভাইয়ের করোনা পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে। শুরু থেকেই বলেছি, তার করোনা নেই। তবু লাশ নিয়ে এত হয়রানি কেন? শেষ পর্যন্ত যুদ্ধ করেই ভাইয়ের লাশ পেয়েছি। হাসপাতাল আর পুলিশের কাছে ক্লিয়ারেন্সের জন্য দৌড়াতে দৌড়াতে চার দিন চলে গেল। পাঁচ দিনের মাথায় লাশ পেয়েছি। মরতে তো একদিন হবেই। কিন্তু করোনা সন্দেহে লাশ নিয়ে কোনো স্বজনকে যেন এমন দুর্ভোগ পোহাতে না হয়। এটা যে কী কষ্টের তা বলে বোঝাতে পারব না।’
অ্যাডভোকেট প্রতিভা বাগচী গতকাল বৃহস্পতিবার এসব কথা বলেন।

গত ১০ এপ্রিল তার একমাত্র ভাই তুষার কান্তি বাগচী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। অনেক হয়রানির পর মরদেহ পেয়েছেন ১৪ এপ্রিল। এরপর পোস্তগোলা শ্মশানে লাশ সৎকার করা হয়েছে।

বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক প্রতিভা বাগচী জানান, তার ভাই তুষার কান্তি রাজধানীর পল্টন এলাকায় একটি ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির অফিসে চাকরি করতেন। ১০ এপ্রিল জ্বরসহ অসুস্থ বোধ করায় তাকে পান্থপথের একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে পরীক্ষার জন্য রক্ত দেওয়ার পর তাকে বাসায় নিয়ে আসা হয়।

বাসায় ফিরে আবার অসুস্থবোধ করায় আবার নেওয়া হয় ওই হাসপাতালে। তারা ভর্তি না করে তুষারকে পাঠিয়ে দেয় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে নেওয়ার পরপরই তাকে করোনা ইউনিটে পাঠানো হয়। রাত ১১টার দিকে তুষারকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসকরা। এরপর শুরু হয় আরেক দুর্ভোগ।

Advertisement


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত