রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

কৃষকের মুখে হাসি এনেছে আগাম জাতের শিম

আগাম জাতের শিম চাষ করে লাভবান হয়েছেন যশোরের কৃষক। চলতি মৌসুমের শুরুতেই এখন শিমে ভরে উঠেছে মাঠজুড়ে। দামটাও ভালো পেয়ে খুশি কৃষক। তেমনি, সড়কের দু’ধারের শত শত জমিতে মাচানের উপর শিম গাছগুলোতে ফুলে ফুলে ভরে গেছে। এতে আবহমান গ্রাম বাংলার অন্যরকম এক দৃশ্য হাতছানি দিচ্ছে।জেলার অন্তত পাঁচ হাজার কৃষক শিম চাষে লাভবান হচ্ছেন।

সবজি চাষের রাজধানীখ্যাত যশোর-ঝিনাইদহ সড়কের দু’ধারে গ্রাম সদর উপজেলার চুড়ামনকাঠি, বারীনগর, সাতমাইল, বাঘারপাড়ার খাজুরা ও বন্দবিলা এলাকায় সরেজমিনে দেখা গেছে, প্রতিটি ক্ষেতেই দোলা দিচ্ছে শিম ফুল, আর শিম।এখনো বাজারে ভালো দাম থাকায় ক্ষেত পরিচর্যায় ব্যস্ত কৃষক। তবে চলতি  মৌসুমে শুধুমাত্র বাঘারপাড়ার বন্দবিলা গ্রামের শতাধিক কৃষক শিম চাষ করে চমক সৃষ্টি করেছেন।

স্থানীয় কৃষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, জৈষ্ঠ্য মাসের শেষেই আগাম জাতের শিম বীজ বপন করা হয়েছে। ফলে অন্তত আরও আড়াই মাস আগে ভাদ্র মাসের শুরুতেই শিম উঠতে শুরু হয়েছে।প্রথমদিকে ১১০ থেকে ১২০ টাকা কেজি দরে শিম বিক্রি হয়েছে। তবে দিন যতো যাচ্ছে, ততোই একদিকে শিমের ফলন বাড়ছে, তাছাড়া শীত মৌসুমকে টার্গেট করে লাগানো জমির শিম উঠতে শুরু করেছে। এতে দামটা কমে সাধারণের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে আসছে।

কিছুদিন আগেও ৮০ টাকা দরে শিম বিক্রি হলেও বর্তমানে ৪৫থেকে ৫০ টাকা পাইকরি দরে শিম বেচাকেনা হচ্ছে। যশোরাঞ্চলে উৎপাদিত আগাম জাতের শিম ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী ছাড়াও দেশের বিভিন্ন এলাকায় সরবরাহ করা হচ্ছে। গতবারের মতো এবারও আসন্ন জানুয়ারি থেকে তাইওয়ান, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর,  সৌদি আরবসহ কয়েকটি দেশে শিম রফতানি করা হবে আশা প্রকাশ করছেন স্থানীয় কৃষকেরা।


© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত