সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

Advertisement

খেলাপিদের জন্য নীতিমালা চূড়ান্ত করতে কাল বাংলাদেশ ব্যাংকে বৈঠক

Advertisement

দেশের শীর্ষ ১৭৭ ঋণখেলাপি প্রতিষ্ঠানকে কঠোর তদারকিতে আনা হচ্ছে। এই প্রতিষ্ঠানগুলো কমপক্ষে ১০০ কোটি টাকা থেকে সর্বোচ্চ এক হাজার কোটি টাকার ঋণখেলাপি। ব্যাংক খাতের মোট খেলাপি ঋণের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ রয়েছে এসব প্রতিষ্ঠানের কাছে, যার পরিমাণ ৪১ হাজার ৯০ কোটি টাকা। সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংক নীতিগত এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শিগগিরই এ-সংক্রান্ত একটি সার্কুলার বা নির্দেশনা সংশ্নিষ্ট ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হবে বলে দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, কঠোর তদারকির মূল উদ্দেশ্য হলো দ্রুত খেলাপি ঋণ আদায়ের মাধ্যমে এই ঋণের পরিমাণ কমিয়ে আনা। বছরের পর বছর আটকে থাকা খেলাপি ঋণ আদায়সহ প্রতিষ্ঠানগুলোর সার্বিক পরিস্থিতি কঠোর ও গভীর অনুসন্ধানের জন্য ঋণ প্রদানকারী ব্যাংকে আলাদা সেল গঠন করার নির্দেশনা দেওয়া হবে। আবার খেলাপি ঋণ তদারকিতে বিদ্যমান ব্যবস্থাও অব্যাহত থাকবে।

জানা গেছে, শীর্ষ ঋণখেলাপি প্রতিষ্ঠানগুলোকে আলাদাভাবে তদারকির জন্য গত মার্চে কাজ শুরু করে বাংলাদেশ ব্যাংক। যেসব প্রতিষ্ঠানের কাছে একশ’ কোটি টাকার বেশি খেলাপি ঋণ রয়েছে, সেগুলোর তদারকিতে আরও কী ধরনের উদ্যোগ নেওয়া যায়- সে বিষয়ে মতামত চেয়ে ব্যাংকগুলোকে চিঠি দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ। ব্যাংকগুলো থেকে মতামত পাওয়ার পর তা পর্যালোচনা শেষে নীতিমালা চূড়ান্ত করতে আগামীকাল সোমবার একটি বৈঠক ডেকেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। কেন্দ্রীয় ব্যাংক শিগগিরই এ-সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে ব্যাংকগুলোতে পাঠাবে। এরপরই ব্যাংকগুলোর প্রতিনিধিরা শীর্ষ খেলাপি প্রতিষ্ঠান তদারকিতে নামবে এবং নিয়মিত বাংলাদেশ ব্যাংকে প্রতিবেদন পাঠাবে।

Advertisement


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত