বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১

চরম স্বাস্থ্যঝুঁকি তবুও বাড়ি ফিরছেন ঘরমুখো মানুষ

পথে পথে বিড়ম্বনা, নানা ঝক্কি-ঝামেলা ও চরম স্বাস্থ্যঝুঁকি তবুও বাড়ি ফিরছেন ঘরমুখো মানুষ। কোনো বাধাই যেন তাদের আটকাতে পারছেন না। এমনকি দক্ষিণাঞ্জলের মানুষকে ঠেকাতে পদ্মা নদীর ফেরিঘাটগুলোতে বিজিবি মোতায়েন করা হলেও গ্রামের দিকের জন¯্রােত কমাতে পারছেন না। চলমান কঠোর লকডাউনে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ থাকলেও ঈদ সামনে রেখে নানান ঝুঁকি নিয়ে ঢাকা ছাড়ছেন ঘরমুখো মানুষ। তবে অভিযোগ রয়েছে, রাতে পুলিশকে ম্যানেজ করে অনেক রুটের দূরপাল্লার বাস চলাচল করছে।

রোববারও শত শত মানুষকে বিকল্প উপায়ে রাজধানীর গাবতলী ও সায়েদাবাদ এলাকা দিয়ে ঢাকা ছাড়তে দেখা গেছে। দূরপাল্লার বাস না থাকলেও এসব টার্মিনাল পয়েন্ট থেকে কয়েকগুণ বেশি ভাড়া দিয়ে নানা যানবাহনে করে বাড়ি ফেরার চেষ্টা করছেন তারা। সরকার কয়েকটি ফেরিঘাট বন্ধ ঘোষণা করার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ফেরিঘাটগুলো থেকে মানুষকে ফিরিয়ে দিচ্ছে শুনেও কোনোভাবে ঢাকায় থাকতে চাইছেন না তারা। যেকোনো উপায়ে হোক গ্রামে ফেরার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

জানা গেছে, দূরপাল্লার বাস না চললেও গাবতলী সায়েদাবাদ মহাখালী বাসটার্মিনালের সামনে গেলেই পরিবহন শ্রমিকরা বিভিন্ন প্রাইভেট গাড়ির হয়ে দালালি করে গাড়ির ব্যবস্থা করে দিচ্ছে। এতে করে দালালি হিসাবে তারা জনপ্রতি ২০০ থেকে ২৫০ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। ভাড়া করা গাড়ির মধ্যে প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস, ট্রাক পিকআপ ভ্যান, নছিমন, মাহেন্দ্র, হিউম্যান হলার, সিএনজি অটোরিকশা ও বিভিন্ন রুটে চলাচলরত বাসের খোঁজ দিয়ে দিচ্ছেন তারা।


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত