মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০

জনপ্রিয় কয়েকটি খেলা শুরুর ইতিহাস

ফুটবল

বর্তমান সময়ের সর্বাধিক জনপ্রিয় খেলা হচ্ছে ফুটবল। প্রাচীন চীনে খ্রিষ্ট পূর্ব ৪৭৬- ২২১ পর্যন্ত এক ধরনের খেলার প্রচলন ছিল, যার নাম ছিল কুজু। কাপড়ে দিয়ে তৈরি গোলাকার বলের মত মোড়ান বস্তু পায়ের মাধ্যমে লাথি মেরে খেলা হত। সৈনিকেরা দেহ সবল রাখার জন্য কুজু খেলত। রোম সাম্রাজ্যেও এ ধরনের খেলার প্রচলন ছিল বলে ধারনা পাওয়া যায়।

পরর্বতীকালে, ১৮৬৩ সালে ব্রিটেনে আধুনিক ফুটবলের রুপায়ন ঘটে এবং ফুটবল এসোসিয়েশন গঠিত হয়। ফুটবল এসোসিয়েশনের কর্তা ব্যক্তিরাই সর্ব প্রথম ফুটবল খেলার নিয়ম লিপিবদ্ধ করে যার ধারাবাহিকতায় আগমন ঘটে আজকের আধুনিক ফুটবল। ফুটবলকে আমেরিকাতে সকার বলে অভিহিত করা হয়।

ক্রিকেট

ক্রিকেট, অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি খেলা বিশেষ করে দক্ষিণ এশিয়াতে। ক্রিকেট খেলার উদ্ভব হয় তের শতকে ইংল্যান্ডে। প্রাথমিক যুগে রাখাল বালকেরা ক্রিকেট খেলা খেলত বলে প্রচলিত রয়েছে। উইকেট হিসেবে কাঠের লাঠি ও বল হিসেবে ভেড়ার পালক গোলাকার  করে ব্যবহার করা হত।

১৬৯৭ সালে ইংল্যান্ডের সাসেক্সে ৫০ গিনি প্রাইজ মানির বিনিময়ে ১১-জন করে প্রথম ক্রিকেট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। ১৭৪৪ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্রিকেট খেলার নিয়ম লিপি বদ্ধ করা হয় এবং ক্রিকেট ম্যাচের আয়োজনের রীতি চালু হয়।

দাবা

জনপ্রিয় খেলা গুলোর মধ্যে একমাত্র দাবা খেলাই ভারতীয় উপমহাদেশে উদ্ভব হয়েছে। ইতিহাসবিদ দের মতে তখন গুপ্ত সাম্রাজ্যের শাসন চালু ছিল। সংস্কৃত শব্দ শতরঞ্জ থেকে দাবা নামটি এসেছে। পরবর্তী কালে, ভারত বর্ষ থেকে পারস্য দেশে ছড়িয়ে পড়ে।

পনের শতাব্দীর মাঝামাঝি তে ইউরোপ থেকে পরিমার্জিত হয়ে  আধুনিক দাবা খেলার সঞ্চালন হয়। কথিত আছে যে, রাবণের স্ত্রী রাবণকে যুদ্ধে নিবৃত্ত করার জন্য দাবা খেলত।

গলফ

গলফ খেলার প্রচলন হয় আজ থেকে খ্রিষ্ট পূর্ব ১০০ বছর পূর্বে রোমান ও চীন সাম্রাজ্যে। পরবর্তীকালে ডাচ, বেলজিয়াম ও ফ্রান্সে লাঠির মাধ্যমে বলকে তাড়িত করার খেলা প্রচলন ছিল। গলফ নামটি উদ্ভব হয়েছে স্কটিশ ভাষা থেকে এবং আনুষ্ঠানিকভাবে ব্যবহার শুরু হয় ১৪৫৭ সালে।

একই বছর রাজা দ্বিতীয় জেমস এটিকে নিষিদ্ধ করে এবং কারণ হিসেবে সৈন্যদের মধ্যে বিশৃঙ্খলাকে উল্লেখ করা হয়।  ১৭৭৪ সালে এডিনবার্গে গলফ খেলার ১৩ টি নিয়ম কানুন লিপিবদ্ধ করা হবে।

টেনিস

টেনিসের উদ্ভব সম্পর্কে শক্তিশালী কোন নতি পাওয়া যায় নি। অনেকে মতামত দিয়েছে প্রাচীন গ্রীক বা মিশরে টেনিস খেলার প্রচলন ছিল। তবে শক্তিশালী সূত্র মতে দশম শতকে ফ্রান্সে টেনিসের প্রচলন হয়। সন্ন্যাসী গন মঠের প্রাচীরের দুই পাশে বল দিয়ে খেলা করত। এক পাশ থেকে বল ছুড়ে তারা টেনজ ( গ্রহণ কর) বলে চিৎকার করত। তের শতকের দিকে টেনিস ফ্রান্সে খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠে এবং আটার শতকের দিকে টেনিস কোর্টের ব্যবহার শুরু হয়। ফ্রান্সে টেনিস এত জনপ্রিয় হয়ে উঠে যে, রাজা সপ্তম লুইস এটিকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। কিন্তু তিনি শেষ পর্যন্ত নিষিদ্ধ করতে ব্যর্থ হন।

রাবার আবিষ্কার হবার পূর্বে টেনিস বল পশম দ্বারা তৈরি করা হত এবং কাঠের মাধ্যমে র‍্যাকেট তৈরি করা হত। ১৮৭৪ সালে আন্তর্জাতিক ভাবে টেনিসের নিয়ম কানুন সিদ্ধ হয় এবং ১৮৭৭ সালে প্রথম উইমিলডন চালু হয়।


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত