বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯

জন্মান্ধ ঘাতক

মেহেদী হাসান তামিম

ভেতরের আমিটা খালি মরে যাই;
মরি আমি যখন-তখন শুধু-শুধুই।
পুনরায় জন্ম নিয়ে হই দ্রুত রূপান্তরিত
একই সে জড় সমাধিই;
নাসারন্ধ্র, কণ্ঠনালী সবকিছু বিবশ পূর্বের মতো
কানদুটো পুরো অকেজো, পাই না শুনতে কিছু আজো
দেখি না কোনো চোখেই।

প্রতিবার আমার জন্ম হয় কেবল জন্মান্ধই
ভালোবাসি— নিজে যেমন।

ভালোবাসি খুউব— অন্ধ বোবা যে পাখি
শেখেনি ভাষা প্রতিবাদী বিপর্যস্ত বৈধব্যেও
নেই মুখে এতটুকু রা, হোক পাখি চাতক অথবা চড়ুই।

মরে গেছি ভেতরের আমি তো সে কবেই
বাহিরের আমিও এখন, অযথাই বারবার মরে যাই
মরি আমি যখন-তখন, মরি শুধু-শুধুই।

দেখা যাচ্ছে যাকে, শুধু চকচকে নতুন মোড়ক
বেঁচে আছি, রই বেঁচে;
যুগ হতে যুগে ঠিক এভাবে জীর্ণ আমি
আমারই খুনি, আমি এক বেহায়া ঘাতক।


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত