মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২

ডাইনি সন্দেহে ২২ বছরে ১ হাজার মানুষকে পিটিয়ে হত্যা

ভারতে এমন এক রাজ্য রয়েছে যেখানে কুসংস্কারের বশবর্তী হয়ে ডাইনি সন্দেহে গত ২২ বছরে প্রায় এক হাজার মানুষকে হত্যা করা হয়েছে। সেই হিসেবে প্রতিদিন গড়ে তিন জন মানুষ হত্যার শিকার হয়েছেন।

ওই রাজ্যের নাম ঝাড়খণ্ড। আনন্দবাজারে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুধুমাত্র ২০২২ সালে এই পর্যন্ত পাঁচজন এই কুসংস্কারের কারণে মানুষের সহিংসতার শিকার হয়েছেন। এর মধ্যে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। ঝাড়খণ্ড পুলিশ এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে। ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ডাইনি অপবাদে পিটিয়ে খুনের ঘটনায় এক হাজার জনের মধ্যে ৯০ শতাংশই নারী।

আনন্দবাজারের ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, গত ২ জানুয়ারি ঝাড়খণ্ডের গুমলা জেলার লুকিয়া গ্রামে এক নারীকে ডাইনি অপবাদে মারধর করেন স্থানীয়রা। এতে তিনি মারা যান। মাকে রক্ষা করতে ছুটে যান তার দুই ছেলে। তারাও রক্ষা পাননি ওই আক্রমণ থেকে। তাদেরকেও দড়ি দিয়ে বেঁধে নির্মমভাবে পেটানো হয়। ওই ঘটনায় দুই ভাই গুরুতর আহত হন। এর মধ্যে একজনের চোখ নষ্ট হওয়ার পথে। এই ঘটনায় পঞ্চায়েত প্রধানসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে পুলিশ।

এর আগে ২০২২ সালের ৫ জানুয়ারি রাজ্যের খুনতি জেলার অদকি থানার তিরলা গ্রামে এক যুগলকে পিটিয়ে খুন করেন প্রতিবেশীরা। তাদের বিরুদ্ধে‘কালোজাদু’ জানার অভিযোগ ছিল গ্রামবাসীর। যদিও পাঁচদিন পর এই খবর প্রকাশ্যে আসে।

এছাড়া গত ১২ জানুয়ারি ডাইনি সন্দেহে মারধরের ঘটনা ঘটে ঝাড়খণ্ড রাজ্যে। থেতাই থানার অন্তর্গত কুড়পানি গ্রামে এক নারীকে ডাইনি অপবাদে বেধড়ক মারধর করা হয়। ওই নারীর ‘কুনজর’ এ তারই এক প্রতিবেশী নারী অকালে মারা যান -এমন অভিযোগ এনে তাকে পেটানো হয়।


© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত