শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯

ডেঙ্গুর প্রকোপ সামনে আসছে

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে হাসপাতালে প্রতিদিন ভর্তি হওয়া ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দিচ্ছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, নতুন রোগী কমছে। ৭ আগস্ট ঢাকা ও ঢাকার বাইরে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ২ হাজার ৪২৮ জন নতুন রোগী ভর্তি হয়েছিল। আজ ১৩ আগস্ট নতুন ভর্তি হয়েছে ১ হাজার ২০০ জন। অর্থাৎ এই সময়ে রোগী ভর্তি কমেছে ৫০ শতাংশের বেশি।

এখন প্রশ্ন উঠেছে, ডেঙ্গুর প্রকোপ কি কমে গেছে? সরাসরি ‘হ্যাঁ’ কিংবা ‘না’ বলছেন না কেউ। ডেঙ্গুর ‘পিক টাইম’ (যে সময়টাতে মানুষ ডেঙ্গুতে ব্যাপকভাবে আক্রান্ত হয়) বাংলাদেশ পার করল কি না, তাও কেউ নিশ্চিত নয়। গত কয়েক বছরের ইতিহাস বলছে, ডেঙ্গুর ‘পিক’ সময়টা সামনে।

সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) সাবেক পরিচালক এবং বর্তমানে আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশের (আইসিডিডিআরবি) উপদেষ্টা অধ্যাপক মাহমুদুর রহমান গত সপ্তাহে বলেছিলেন, ‘যেভাবে ডেঙ্গু নিয়ে হইচই হয়েছে, তাতে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক যেমন ছড়িয়েছে, মানুষ সচেতনও হয়েছে। সুরক্ষার জন্য ব্যক্তিগত উদ্যোগে মানুষ নানা পদক্ষেপ নিয়েছে। সরকারও নানা উদ্যোগ নিয়েছে। এতে ডেঙ্গুর প্রকোপ কিছুটা কমবে, এটাই স্বাভাবিক।’

মোটাদাগে এপ্রিল থেকে অক্টোবর পর্যন্ত ডেঙ্গুর মৌসুম। গত কয়েক বছরের পরিসংখ্যান বলছে, সবচেয়ে বেশি মানুষ আক্রান্ত হয় সেপ্টেম্বরে। ২০১৮ সালে ১০ হাজার ১৪৮ জন রোগী ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল। এর মধ্যে জুলাইয়ে ৯৪৬, আগস্টে ১ হাজার ৭৯৬ ও সেপ্টেম্বরে ৩ হাজার ৮৭ জন। সেপ্টেম্বরের পর থেকে প্রকোপ কমতে থাকে।

এ বছর জুলাই মাসেই ১৬ হাজার ২৫৩ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল। আগস্টের প্রথম ১৩ দিনে রোগীর সংখ্যা ২৬ হাজার ছাড়িয়েছে। সেপ্টেম্বর আসতে এখনো ১৭ দিন বাকি।


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত

error: Content is protected !!