মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

তিন বছরে বিসিবির আয় প্রায় ২৫০ কোটি টাকা

মাঠে খেলা চলমান থাকলে ক্রিকেট বোর্ডের আয় বাড়তে থাকে। এসময় বাংলাদেশ ছোট দেশগুলোর বিপক্ষে সিরিজ খেলতো। তবে ২০১২ সালের পর ধীরে ধীরে বড় বড় দলগুলোর বিপক্ষে সিরিজ খেলতে শুরু করে টাইগাররা। প্রতিটি সিরিজে সফলতার সঙ্গে বাড়তে থাকে বোর্ডের আয়ও।

২০১২-১৮ সাল পর্যন্ত ছয় বছরে বিসিবির যে আয় ছিল পরের তিন বছরে তা প্রায় তার সমান দাঁড়িয়েছে। করোনা না থাকলে এর পরিমাণ হয়তো ছাড়িয়েও যেতে পারতো।

বৃহস্পতিবার বর্তমান কমিটির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) শেষে বোর্ড প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন এ তথ্য জানান। এক প্রশ্নের জবাবে পাপন জানান, ২০১২ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ৬ বছরে বোর্ডের মোট আয় ছিল ৩৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। তবে পরের তিন বছরে অর্থাৎ ২০১৮-২১ সাল পর্যন্ত করোনার মধ্যেও বোর্ডের আয় হয়েছে ২৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২৫০ কোটি টাকা।

পাপন বলেন, ‘বড় বড় বোর্ডগুলো করোনায় মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত। তারা আইসিসি থেকে টাকা ঋণ নিচ্ছে বা চাচ্ছে। সে জায়গায় আমরা ক্রিকেটের বাইরেও অনেককে সাহায্যের চেষ্টা করে গিয়েছি। ১২ থেকে ১৮, এই ছয় বছরে আমরা ৩৩ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি পেয়েছি। গত ৩ বছরে সেটা ২৯ মিলিয়ন ডলার, করোনা পরিস্থিতি সত্ত্বেও।’


© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত