সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০

তীব্র স্রোতে দুই নৌরুটে ফেরি পারাপারে অচলাবস্থা

পদ্মা-যমুনা নদীতে তীব্র স্রোতের কারণে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে নৌযান চলাচলে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। প্রচণ্ড স্রোতের বিপরীতে ফেরিগুলো চলছে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে। চারটি ফেরি চলাচল করতে না পারায় বসিয়ে রাখা হয়েছে। যান্ত্রিক সমস্যায় সংস্কারে আছে রুটের সাতটি ফেরি। এতে করে ফেরির সংকটও দেখা দিয়েছে প্রকট আকারে।

এসব কারণে গত কয়েকদিন ধরে এ রুটে যানবাহন পারাপার চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। উভয় ঘাটে নদী পারের অপেক্ষায় আটকে পড়েছে সহস্রাধিক যানবাহন। বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টা নাগাদ দৌলতদিয়া ঘাট থেকে গোয়ালন্দ রেলগেট পর্যন্ত প্রায় সাত কিলোমিটারজুড়ে মহাসড়কে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট। যানজটে আটকে পড়ে সহস্রাধিক যানবাহন। আটকেপড়া যাত্রী ও চালকরা সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। তিন-চার দিনেও নদী পার হতে পারছে না অপচনশীল পণ্যবাহী যানবাহন। ১/২ দিন ধরে আটকে থেকে কয়েকশ’ কাঁচামালবাহী ট্রাকের পণ্য পচতে/পাকতে শুরু করেছে।

বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া অফিস সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে পাটুরিয়া ঘাট থেকে যাত্রী ও যানবাহন বোঝাই করে রোরো ফেরি আমানত শাহ দৌলতদিয়া ঘাটের উদ্দেশে রওনা দেয়। কিন্তু মাঝ নদীতে এসে তীব্র স্রোতের কারণে ফেরিটি আর সামনে এগোতে পারেনি। এ অবস্থায় প্রায় চার ঘণ্টা সেখানে ইঞ্জিন চালু রেখে ফেরিটি স্থির রাখতে পারলেও একপর্যায়ে বাধ্য হয়ে পুনরায় পাটুরিয়া ঘাটে ফিরে যায়। একইভাবে দুপুর ১২টার দিকে রোরো ফেরি শাহজালাল পাটুরিয়া থেকে দৌলতদিয়ার ৬ নম্বর ঘাটের কাছাকাছি এলেও তীব্র স্রোতে শেষ পর্যন্ত ঘাটে ভিড়তে পারেনি।


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত