সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

Advertisement

দলের উপকমিটি গঠন নিয়ে সতর্ক আওয়ামী লীগ

Advertisement

দলের উপকমিটি গঠন নিয়ে সতর্ক আওয়ামী লীগ। শীর্ষ নেতাদের শঙ্কা, বিতর্কিত ও অনুপ্রবেশকারীরা বিভাগীয় উপকমিটিগুলোতে ঢুকে পড়তে পারেন। সেজন্য সংশ্নিষ্টদের কঠোর সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে। বিশাল আকারের উপকমিটি গঠনের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়ে নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছে সদস্য সংখ্যা। চলতি মাসের মধ্যেই স্বচ্ছ ও পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তির নেতাদের নিয়ে সব উপকমিটি পূর্ণাঙ্গ করার প্রচেষ্টাও চলছে জোরেশোরে। সংশ্নিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।
সম্প্রতি ক্ষমতাসীন দলের সম্পাদকমণ্ডলীর বৈঠকেও উপকমিটি গঠন নিয়ে আলোচনা হয়। সেখানে উপকমিটির সদস্য পরিচয় দিয়ে কারও কারও দুর্নীতি-অপকর্মে জড়িয়ে পড়ার বিষয়ে সমালোচনামুখর হয়ে ওঠেন দলের কেন্দ্রীয় নেতারা। বিশেষ করে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিকবিষয়ক উপকমিটির সদস্য পরিচয় দিয়ে নানা অপকর্মে যুক্ত ও গ্রেপ্তার হওয়া রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদের প্রসঙ্গে তুমুল সমালোচনা হয়। এর পরই প্রতিটি সম্পাদকীয় বিভাগের জন্য পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তির নেতাদের নিয়ে এবং সর্বোচ্চ ৩৫ সদস্য মনোনয়ন দিয়ে চলতি মাসের মধ্যেই সব উপকমিটি পূর্ণাঙ্গ করার নির্দেশ দেওয়া হয়।
ওই বৈঠক থেকেই আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আগামী ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সবা উপকমিটি পূর্ণাঙ্গ করে কেন্দ্রে জমা দেওয়ার জন্য বিভাগীয় সম্পাদকদের নির্দেশ দেন। বিভাগীয় সম্পাদকদের জমা দেওয়া উপকমিটিগুলো যাচাই-বাছাই শেষে এবং দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চূড়ান্ত অনুমোদন সাপেক্ষে চলতি মাসের মধ্যে এসব উপকমিটি ঘোষণা করা হবে বলেও জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদে বর্তমানে ১৯টি বিভাগীয় সম্পাদকের পদ রয়েছে। এ ছাড়া এবার থেকে আটজন বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের জন্যও একটি করে উপকমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ হিসেবে এবার ২৭টি বিভাগীয় উপকমিটি গঠনের কথা রয়েছে। বেশ কয়েকজন সাংগঠনিক সম্পাদক ও বিভাগীয় সম্পাদক জানিয়েছেন, কেন্দ্রের নির্দেশ অনুযায়ী নিজ নিজ উপকমিটি গঠনের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। বেঁধে দেওয়া সময় অর্থাৎ ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যেই উপকমিটিগুলো জমা দিতে পারবেন বলে আশা করছেন তারা। আর কোনো অবস্থায়ই বিতর্কিত ও অপকর্মে লিপ্ত অনুপ্রবেশকারীদের উপকমিটিতে ঠাঁই দেওয়া হবে না।

Advertisement


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত