বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১

নতুন শিক্ষাবর্ষে স্কুলে শিক্ষার্থী ভর্তি হবে লটারির মাধ্যমে

আসছে জানুয়ারিতে নতুন ২০২২ শিক্ষাবর্ষে স্কুলে শিক্ষার্থী ভর্তি হবে লটারির মাধ্যমে। গত বছরের মতো এবারও সারাদেশের বেসরকারি ও সরকারি স্কুলে প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।

আসছে শীতে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রকোপ বাড়তে পারে- এমন আশঙ্কা মাথায় রেখে গত বছরের মতোই ভর্তি পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।

বুধবার (৩ নভেম্বর) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মাহবুব হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সরকারি-বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি নীতিমালা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বৈঠক সূত্র জানায়, করোনার সংক্রমণ রোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নতুন বছরের স্কুলে ভর্তি নীতিমালা চূড়ান্ত করা হয়েছে। নীতিমালায় ২০২২ সালের শিক্ষাবর্ষে প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

টেলিটকের মাধ্যমে লটারি কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।

জানা গেছে, এবারের স্কুল ভর্তি নীতিমালায় বড় ধরনের পরিবর্তন আনা না হলেও দু’একটি নতুন সিদ্ধান্ত রয়েছে। যেমন আগে সরকারি চাকরিজীবী কেউ বদলি হলে তার নতুন কর্মস্থলের কাছাকাছি সরকারি-বেসরকারি স্কুলে সন্তানের ভর্তির সুযোগ দেয়া হতো। এবারের নীতিমালায় সে সুবিধার সঙ্গে সরকারি চাকরিজীবী কেউ মারা গেলে বা অবসরে গেলে, সেই শিক্ষার্থীর পরিবার অন্যত্র স্থানান্তর হলে সেখানেও সন্তানের ভর্তির সুযোগ দেয়া হবে। এ সুবিধা একবারের জন্য দেয়া হবে।

সভা সূত্র জানায়, জেলা পর্যায়ের কিছু শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য একাধিক জেলায় আবেদন করে থাকে। সেই ক্ষেত্রে ভর্তির আগে বা পরে পছন্দের বিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য নিজ ও নির্বাচিত জেলার স্কুলে আলোচনা করে তারা ভর্তির বিষয়টি চূড়ান্ত করতে পারবে। এবারও আগের মতোই বেসরকারি স্কুলে ভর্তির আবেদন ফি ২০০ টাকা ও সরকারিতে ১৭০ টাকা রাখা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি বাড়ানো হচ্ছে না। ভর্তি নীতিমালার অন্যান্য বিষয় আগের মতোই থাকছে।

জানতে চাইলে মাউশি পরিচালক (বিদ্যালয়) বেলাল হোসাইন বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে ভর্তি নীতিমালায় লটারিসহ কয়েকটি বিষয় গত বছরের মতো রাখা হয়েছে। শিগগিরই নীতিমালা জারি করা হবে। এরপরই শুরু হবে ভর্তি ফরম বিক্রি ও জমা।


© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত