বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১

নিশো ও মেহজাবীন জুটির ‘গোলমরিচ’

আওয়াজ রেল স্টেশনে নেমে, ফোন ডায়াল করে কাঁধের চাপে কানে ধরে। দুইহাতে মানিব্যাগে পকেটের অবস্থাটা বোঝার চেষ্টা করছে। ঠিক সেই সময়ে ঝড়ের মতো এসে ধাক্কা খায় নিতু। কান থেকে ছিটকে পড়ে মোবাইল ফোনটি টুকরো টুকরো হয়ে যায়।

ওদিকে নিতুর চট্টগ্রামগামী ট্রেন ছেড়ে যাচ্ছে। কিন্তু ক্ষতিপূরণ ছাড়া কোনোভাবেই নিতুকে ছাড়বে না আওয়াজ। বাধ্য হয়ে নিতু তাকে নিয়ে মোবাইল রিপেয়ারিংয়ের দোকানে যায়। ফোনের ডিসপ্লে নষ্ট হয়ে গেছে, জেনে আওয়াজের মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। কারণ সে যে বাসায় উঠবে, চাকরির ইন্টারভিউ’র প্রবেশপত্র সংগ্রহ করবে তাদের ফোন নম্বর, বাসার ঠিকানা সবই এই ফোনে।

নিতু আওয়াজকে থামিয়ে বলে, তার চেয়েও বেশি ক্ষতি হয়েছে তার। কারণ সে বাসা থেকে পালিয়েছে। আর চট্টগ্রামে তার বয়ফ্রেন্ড অপেক্ষা করছে। আওয়াজের কারণে সে ট্রেন মিস করেছে। নিতুই আওয়াজকে বুদ্ধি দেয় আজকে রাতটা তারা কোনো রকম হোটেলে কাটিয়ে পরদিন সকালে ট্রেন ধরবে। পথে আওয়াজকে নামিয়ে দেওয়া হবে তার ঠিকনায়। নিতুর কথা শোনা ছাড়া আওয়াজের আর কোনো রাস্তাও ছিল না।

টাকা বাঁচানোর জন্য তারা মাঝারি গোছের একটা হোটেল রুম ভাড়া নেয়। মাঝরাতে সেই হোটেলে পুলিশের রেড পড়ে এবং অনৈতিক কাজের দায়ে তাদের আটক করা হয়। এমনই এক গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে নাটক ‘গোলমরিচ’। এর প্রধান দুই চরিত্রে অভিনয় করেছেন আফরান নিশো ও মেহজাবীন চৌধুরী। সিএমভি’র ব্যানারে রাজীব আহমেদের চিত্রনাট্যে নাটকটি নির্মাণ করেছেন রুবেল হাসান।

নাটকটি সম্পর্কে নির্মাতা বলেন, ‘সফলতা আগেও পেয়েছি অনেক নাটকে। তবে “চাপাবাজ” সবকিছু ছাপিয়ে গেল। সেই রেশ ধরেই নতুন বছরের বিশেষ কাজ হিসেবে নির্মাণ করেছি “গোলমরিচ”। আমাদের ধারণা, এই নাটকটিও দারুণ হিট হবে। কারণ এর গল্প, অভিনয় আর নির্মাণশৈলী- সবকিছুতেই আমরা চেষ্টা করেছি নতুন কিছু করার।’


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত