মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

পৃথিবীর প্রথম মৃত্যুর ইতিহাস

পৃথিবীর প্রথম মানুষ হযরত আদম (আ) আর প্রথম মানবী হযরত হওয়া (আ)। সেই হিসাবে মানব জাতির আদি পিতা এবং আদি মাতা হলেন হযরত আদম (আ) এবং হযরত হাওয়া (আ)।

হযরত আদম এবং হাওয়া (আঃ)-এর এক পুত্রের নাম ছিল হাবিল এবং অন্য এক পুত্রের নাম ছিল কাবিল। কাবিল তার সহোদর হাবিলকে অন্যায়ভাবে হত্যা করেছিলেন। আর এ হত্যাকান্ড ছিল পৃথিবীতে আদম সন্তানের মধ্যে প্রথম হত্যাকান্ড । এ হত্যাকান্ডের শিকার হলেন আদম পুত্র হাবিল। এ কারণে পৃথিবীর প্রথম মৃত মানুষ হলেন হাবিল।

হাবিল এবং কাবিলের ঘটনা মহান রাব্বুল আলামীন পবিত্র কুরআনের সূরা মায়িদার ২৭-৩১নং আয়াতে উল্লেখ করেছেন। এছাড়া বহু বিশুদ্ধ ও শক্তিশালী
সনদ সম্পন্ন হাদীসেও এ ঘটনাটি বর্ণিত হয়েছে।

যখন হযরত আদম (আ) ও হাওয়া (আ) পৃথিবীতে আগমন করেন এবং তাদের সন্তান প্রজনন ও বংশবিস্তার শুরু হয় তখন কেবল ভাই ও বোন ছাড়া আদমের সন্তানদের মধ্যে অন্য কোন লোক ছিল না। তাই তাদের জোড়ায় জোড়ায় সন্তান হতো আর আগের ছেলের সাথে পরের বারের মেয়ে আর পরের বারের মেয়ের সাথে আগের বারের ছেলের  বিবাহ দিত।

সে হিসাবে কাবিলের সাথে যে বোনটি জন্মগ্রহণ করলো সেটি হাবিলের সাথে আর হাবিলের সাথে যে বোনটি জন্মগ্রহণ করলো তার বিবাহ কাবিলের সাথে বিবাহ হওয়ার বিধান থাকলেও কাবিল তাতে বাধ সাধলো। কেননা, হাবিলের সাথে যে জন্মানো বোনটির চেয়ে কাবিলের সাথে জন্মানো বোনটি দেখতে বেশী সুন্দর ছিল। কিন্তু আদম (আ) এর শরিয়তের বিধান লঙ্গন করে কাবিল তার সহোদরা সুন্দরী বোনটিকে বিবাহ করতে চাইল। যে বোনকে নিয়ম অনুসারে হাবিল বিবাহ করতে পারে।

হযরত আদম (আ) তার শরিয়তের বিধান ঠিক রাখার জন্য কাবীলের প্রস্থাব প্রত্যাখ্যান করলেন। এতে কাবিল অসন্তুষ্ট হয়ে হাবিলের শত্রুতে পরিণত হল।

অতঃপর হযরত আদম (আ.) এ বিষয়টার সুন্দর সমাধানের জন্য হাবিল ও কাবিলকে আল্লাহর সন্তুষ্টির নিমিত্তে কুরবানী পেশ করার পরামর্শ দিলেন। আর বলে দিলেন যে, যার কুরবানী গ্রহণযোগ্য হবে সে সুন্দরী মেয়ের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হবে। হযরত আদম (আ.)-এর দৃঢ় বিশ্বাস ছিল যে, সত্যপন্থীর কুরবানীই আল্লাহর কাছে গ্রহণযোগ্য হবে। সে সময়ের কুরবানী গৃহিত হওয়ার নিদর্শন এই ছিল যে, আকাশ থেকে একটি অগ্নিশিখা এসে কুরবানীর বস্তুকে ভস্মিভূত করে উধাও হয়ে যেত। যে কুরবানী অগ্নি ভস্মিভূত করত না, তা কবুল হয়নি বলে ধরে নেয়া হত।

হাবিল ভেড়া, দুম্বা ইত্যাদি পশু পালন করতেন। তিনি একটি উৎকৃষ্ট দুম্বা কুরবানীর জন্য পেশ করলেন। আর কাবিল কৃষি কাজ করতেন বলে তিনি কিছু শস্য, গম ইত্যাদি কুরবানীর জন্য পেশ করলেন। অতঃপর নিয়মানুযায়ী আকাশ থেকে অগ্নিশিখা এসে হাবিলের কুরবানীটি ভস্মিভূত করে দিল। পক্ষান্তরে কাবিলের কুরবানীর বস্তু গুলো যেমন ছিল তেমনই পড়ে থাকল। এতে কাবিলের দুঃখ-ক্ষোভ আর বহুগুণে বেড়ে গেল। সে অন্তর্জ্বালায় জ্বলতে জ্বলতে তার ভাইকে লক্ষ্য করে ঘোষনা দিল, ‘আমি অবশ্যই তোমাকে হত্যা করব’।

অবশেষে কাবিল ক্রোধের বশভর্তি হয়ে হাবিলকে হত্যা করলো। এটিই পৃথিবীর প্রথম মৃত্যু।


© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত