শুক্রবার, ২১ জানুয়ারি ২০২২

প্রথমবারের মতো সূর্যকে ‘ছুঁয়ে’ ফেলল নাসার সৌরযান

প্রথমবারের মতো সূর্যের বলয়ের মধ্যে ঢুকে পড়েছে নাসার সৌরযান। পার্কার নামের ওই সৌরযানটি করোনা নামের ওই সূর্যের বলয়ের ভেতর ঢুকে পড়ে বলে মঙ্গলবার বিজ্ঞানীরা আমেরিকান জিওফিজিক্যাল ইউনিয়নের এক বৈঠকে ঘোষণা করেছেন। বার্তা সংস্থা এপি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞানীরা জানান, চলতি বছরের এপ্রিলে মহাকাশযান পার্কার করোনার ভেতর ঢুকে পড়ে। সেই সময় পার্কার যে তথ্য সংগ্রহ করেছিল, এতদিনে তা বিজ্ঞানীদের হাতে এসে পৌঁছেছে।

জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির বিজ্ঞানী নুর রাওফি এই ঘটনাকে ‘চমকপ্রদ উত্তেজনাপূর্ণ’ বলে অভিহিত করেছেন।

বিজ্ঞানীরা জানান, ২০১৮ সালে পৃথিবী থেকে সূর্যের দিকে যাত্রা শুরু করেছিল নাসার সৌরযান পার্কার। সূর্যের সবচেয়ে কাছে তা পৌঁছে গেছে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছেন নাসার বিজ্ঞানীরা। নাসার তরফে বলা হয়েছে, এর আগে সূর্যের এত কাছে কোনো যান পৌঁছাতে পারেনি। সূর্যের বলয়ের মধ্যে ঢুকে তথ্য সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়েছে পার্কার।

করোনা নামে ওই সূর্যের বলয়ে পার্কার যখন পৌঁছেছিল তখন সেখানে উত্তাপ দুই মিলিয়ন কেলভিন ছিল বলে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন। অর্থাৎ, সেখানে ১৯ লাখ ৯৯ হাজার ৭২৬ দশমিক আট পাঁচ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা ছিল। ওই উত্তাপে সেকেন্ডে একশ কিলোমিটার বেগে করোনার ভেতরের তথ্য সংগ্রহ করেছে পার্কার।

নাসার বিজ্ঞানীদের ধারণা, এর মধ্যে অন্তত তিনবার সূর্যের বলয়ের মধ্যে ঢুকেছে পার্কার। সব মিলিয়ে দশবার সূর্যের বলয়ে যানটি প্রবেশ করবে বলে বিজ্ঞানীদের ধারণা। ২০২৫ সাল পর্যন্ত পার্কার তার অভিযান চালিয়ে যাবে।

রাওফির মতে, করোনায় যতটা মনে করা হয়েছিল তার চেয়ে ধূলিময়। তিনি বলেন, ভবিষ্যত পার্কারের করোনায় অনুসন্ধান বিজ্ঞানীদেরকে সৌর বায়ুর উৎপত্তি সম্পর্কে আরও ভালোভাবে বুঝতে সাহায্য করবে। এছাড়া কীভাবে সূর্য পুরো সৌরমণ্ডলকে পরিচালিত করে, পার্কারের পাঠানো তথ্য থেকে সে বিষয়ে অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় জানা যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।


© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত