বুধবার, ১২ মে ২০২১

প্রধানমন্ত্রীর উপহারে মিটছে আবাসনের অভাব

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে উপহার হিসেবে দেয়া ঘর পেয়ে নেত্রকোনার খালিয়াজুরী উপজেলার ভূমিহীন ও গৃহহীন ৮৪৩টি পরিবারের মিটছে আবাসন সংকট।

মুজিব বর্ষ উপলক্ষে ‘আশ্রয়ণের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সরকারি খাস জমিসহ সম্প্রতি এসব ঘর দেয়া হচ্ছে।

এগুলো দেয়া হচ্ছে দুটো ধাপে। প্রথম ধাপের ৪৪৩টি ঘর নির্মাণ কাজ শেষ হবার পর ঘরগুলোতে ইতিমধ্যে সুবিধাভূগী পরিবারসমূহ নিরাপদে বসবাস করছেন। সেমি পাকা এসব ঘরের প্রতিটিতে নির্মাণ ব্যায় হয়েছে এক লাখ ৭১ হাজার টাকা।

এদিকে, ২য় ধাপে বরাদ্দ করা ৪শ ঘরের নিমার্ণ কাজ শুরু হয়েছে চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে। এসব ঘরের প্রতিটির ব্যায় বরাদ্দ ধরা হয়েছে এক লাখ ৯০ হাজার টাকা। এ ঘরগুলোর কাজ সম্পন্ন হবে ৩০ জুনের মধ্যে।

প্রথম এবং দ্বিতীয় দুটো ধাপের ঘর একই আদলে চলতি অর্থ বছরের অর্থায়নে নির্মিত হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের আশ্রায়ণ-২ প্রকল্পের আওতায়। ঘর হচ্ছে সেমি পাকা করে সাড়ে ১৯ ফুট প্রস্থ আর ২২ফুট দৈর্ঘ্যে। প্রতিটি ঘরে রয়েছে দুটি শয়নকক্ষ, একটি রান্না ঘর, একটি টয়লেট ও সামনে বারান্দা।

বুধবার (২১ এপ্রিল) এসব তথ্য নিশ্চিত করে খালিয়াজুরী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) রাজিব আহমেদ জানান, দুটো ধাপে বরাদ্দকৃত ঘরের মাঝে রয়েছে খালিয়াজুরী সদর ইউনিয়নের খালিয়াজুরী গ্রামে ২টি, মুজিব নগরে ৭৩টি, মুমিন নগরে ৩৬টি, আদাউড়ায় ২৬টি, যোগীমারায় ২৪টি, রোয়াইলে ৩৩টি, লক্ষীপুরে ৬৭টি, চাকুয়া ইউনিয়নের হাতিলা ছমিরপুরে ৪৩টি, কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের শ্যামপুরে ৩০টি, যাদবপুরে ৩১টি, জাহেরপুরে ১২৪টি, নগর ইউনিয়নের গন্ডামারায় ২৩টি, সগ্রাখাইয়ে ২৮টি, আদমপুরে ২৩টি, বল্লভপুরে ৪টি, মেন্দিপুর ইউনিয়নের রসুলপুরে ৪টি, নূরালীপুরে ৫৪টি ও আসাদপুরে ১টি, জগন্নাথপুরে ১৯টি, বীরবিল্লায় ১১টি ও গাজীপুর ইউনিয়নের বয়রা গ্রামে ১৮৭টি ঘর।

ঘর নির্মাণ কাজের গুনগত মান সম্পর্কীত এক প্রশ্নের জবাবে খালিয়াজুরী সদর ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামে ঘর পাওয়া আনোয়ার হুসেন, আলীনূর মিয়া ও গুলনাহার বেগমসহ অনেকই জানান, তারা ওই নির্মাণ কাজে সন্তোষ্ট। তাদের প্রাপ্যতা তারা বুঝে নিচ্ছেন শতভাগ।

খালিয়াজুরী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) এ এইচ এম আরিফুল ইসলাম বলেন, ভূমিহীন ও গৃহহীন অসহায় পরিবারগুলোর আবাসন সংকট নিরসনের লক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপহার হিসেবে খালিয়াজুরীতে ওই ঘরগুলোর বরাদ্দ দিয়েছেন। আমরা ঘরগুলো ভাল ভাবে নির্মাণের মাধ্যমে সুবিধাভূগীদের মাঝে বুঝিয়ে দিতে আপ্রাণ চেষ্টা করছি।’


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত