বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

ভাঙছে ঢাকা মহানগর বিএনপির কমিটি

ব্যর্থতা ও নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগে শিগগিরই ভেঙে দেয়া হচ্ছে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির আংশিক কমিটি। এ ব্যাপারে দলটির নীতিনির্ধারকরা নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

নতুন কমিটি গঠনের প্রক্রিয়াকে সামনে নিয়ে এগোচ্ছেন তারা। কেউ কেউ চাচ্ছেন, বর্তমান কমিটি ভেঙে দিয়ে আহ্বায়ক কমিটি করতে। তবে এর বিরোধিতা করছেন অনেকেই। তাদের মতে, আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হলে তা আবার ঝুলে যেতে পারে। তাই সরাসরি পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পক্ষে তারা।

এ ক্ষেত্রে ব্যর্থ ও আত্মগোপনে থাকা নেতাদের বাদ দিয়ে যারা দলীয় কার্যক্রমে সময় দিতে পারবে এমন নেতাদের সমন্বয়ে কমিটি করতে সুপারিশ তাদের। এ ক্ষেত্রে প্রাধান্য পাবে তরুণরা।

ব্যর্থতার কারণে বারবার নতুন নেতৃত্ব আনার পরও গতি আসছে না মহানগর বিএনপিতে। সাবেক সভাপতি সাদেক হোসেন খোকাকে সরিয়ে দলের প্রভাবশালী নেতা মির্জা আব্বাসকে আহ্বায়ক করে শক্তিশালী কমিটি করা হলেও তারাও ব্যর্থ হন। সবশেষ ২০১৭ সালের ১৮ এপ্রিল মহানগরকে দুই ভাগ করে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। দলের যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেলকে সভাপতি ও সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর কাজী আবুল বাসারকে সাধারণ সম্পাদক করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির ৭০ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছিল।

আর এমএ কাইয়ুমকে সভাপতি ও আহসানউল্লাহ হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে ঘোষণা করা হয় উত্তরের কমিটি। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী, বিএনপির মহানগর কমিটিগুলোর মেয়াদ দুই বছর। সে হিসাবে, এসব কমিটির মেয়াদ ইতিমধ্যে শেষ হয়ে গেছে। ঘোষণার সময় নির্দেশনা ছিল, এক মাসের মধ্যেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি করতে হবে। কিন্তু দিন মাস বছর গড়িয়ে কমিটিরই মেয়াদ ফুরিয়ে গেছে- পূর্ণাঙ্গ কমিটি আর হয়নি। শুধু তাই নয়, দুই সিটির যেসব থানা ও ওয়ার্ডের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছিল সেগুলোও পূর্ণাঙ্গ হয়নি।


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত