সোমবার, ০১ জুন ২০২০

মাতৃত্ব প্রতিবন্ধকতা নয়, আশীর্বাদ || মুমু মাহিনূর

একটি শিশুর জন্মের সাথে সাথে একজন মায়েরও জন্ম হয়। সেই মায়ের পুরো জীবনটাই পাল্টে যায়। তখন তার অন্যতম পরিচয়, সে একজন মা। এই পরিচয় অহংকারের, এই পরিচয় সাধনার।

অনেকেই আছেন মাতৃত্বের জন্য অনেক লোভনীয় ক্যারিয়ার ছেড়ে শুধুমাত্র একজন আদর্শ মা হওয়ায় জন্য জান দিয়ে দিচ্ছেন। এতেই তারা সবটুকু সুখ খুঁজে পাচ্ছেন। আবার অনেকেই আছেন এই ক্যারিয়ার ছেড়ে দেয়ার জন্য অনেক হতাশ হয়ে যাচ্ছেন এবং এই হতাশার জন্য নিজের সন্তানকেই দায়ী করছেন। আমি তাদের উদ্দেশ্যে বলছি।

ছোটবেলা থেকেই আমি প্রচণ্ড ক্যারিয়ার সচেতন ছিলাম। ২০১৭ এর ২০ ফেব্রুয়ারি আমি মা হই। অন্য সবার মত আমারও বাইরের জগৎ খুব সংকীর্ণ হয়ে যায়। ক্যারিয়ার বিসর্জন দিয়ে আমিও হয়ে যাই ঘরকুনো। না! আমি এটাকে বিসর্জন বলবো না। একটু ভিন্নভাবে যদি বলি তাহলে বলবো , মা হওয়ার সাথে সাথে আমি অন্য এক জগৎ খুঁজে পেয়েছি। যেই জগৎটাকে আমি নিজের ইচ্ছেমত সাজিয়ে নিয়েছি।

ইচ্ছে ছিল কোনোভাবেই থেমে যাবো না। যেভাবেই হোক আমাকে এগিয়ে যেতেই হবে। তবে আমার প্রথম কর্তব্য হচ্ছে আমার সন্তানের যত্ন নেয়া। আমার প্রথম পরিচয় আমি একজন মা। তাইতো পুরো পৃথিবীটাকে নিয়ে এলাম নিজের ঘরে। শখের বসেই খুলে ফেললাম নিজের অনলাইন পেইজ। নিজের ঘর আর বচ্চা সামলে বাকি যতটুকু সময় থাকতো তার পুরোটাই দিয়েছি নিজের পেইজে।

আজ আমার পেইজে জব করছে মোট পাঁচজন। চারজন ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ এবং একজন ডেলিভারি বয়। আমার ছোট খাটো একটা অফিস ও আছে। আমার বাবুর জন্য কোন কাজই আটকে থাকেনি। আমি গর্ব করে বলতে পারি, আমি জব করিনি তাতে কি ! আমার পেইজে পাঁচজনের কর্মসংস্থান করতে পেরেছি। এছাড়া পুরো জীবনতো এখনো পড়েই আছে। ইচ্ছে থাকলে সবই করা যায়। জীবনে প্রতিবন্ধকতা বলে কিছু নেই।

মাতৃত্বকে উপভোগ করুন , ভালোবাসুন নিজেকে।


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত