মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

শীতে শিশুকে কোন পদ্ধতিতে গোসল করাবেন?

শীতকালে অনেক মায়ের চিন্তা শিশুকে কিভাবে স্নান করবেন? ঋতু বদলানোর এই সময়টাতে স্নান করানোর সময়টা নিয়েও অনেকে দ্বিধায় ভোগেন। কখন স্নান করাতে হবে, কীভাবে স্নান করালে ও সুস্থ থাকে, এসবও সেই ভাবনা। জন্মের পর থেকে ২ থেকে ৩ বছর বয়স পর্যন্ত মা-বাবা এসব বিষয় নিয়ে একটু বেশিই ভেবে থাকেন।

নবজাতকের বয়স ৩ দিন পূর্ণ হওয়ার পর স্নান করানো যায়। কোনো অবস্থাতেই এর আগে স্নান করানো ঠিক নয়। আবার এই নিয়ম শুধু পূর্ণ গর্ভকাল পেরিয়ে জন্ম নেওয়া শিশুদের জন্য। যেসব শিশু পূর্ণ গর্ভকালের আগেই জন্মেছে এবং যাদের ওজন স্বাভাবিকের চেয়ে কম, তাদের ৩ দিন পরেও স্নান করানো যাবে না। পূর্ণ গর্ভকালের আগে জন্মানো শিশুদের কখন থেকে স্নান করানো শুরু করা যাবে, এটা নির্ভর করে তার ওজন এবং কতটা গর্ভকাল সে পেরিয়েছে, সেই সময়টার ওপর।

নবজাতকের জন্য

হালকা গরম জল শিশুর জন্য সবচেয়ে ভালো। শীত-গ্রীষ্ম সব সময়ই এ নিয়মটা মেনে চলা প্রয়োজন। পূর্ণ গর্ভকাল পেরোনো শিশুর ৩ দিন থেকে ১৫ দিন বয়স পর্যন্ত সপ্তাহে ১ দিন স্নান করানো ভালো। ১৫ দিন বয়স হয়ে গেলে গরমের সময়টায় তাকে প্রতিদিনই স্নান করানো যায়। আবার এক দিন পর পর করালেও ক্ষতি নেই। তবে পূর্ণ গর্ভকাল পার হয়নি এমন নবজাতকদের সপ্তাহে ১-২ দিন স্নান করাতে হবে। কত সময় ধরে নবজাতককে স্নান করাতে হবে, এর কোনো নির্দিষ্ট নিয়ম নেই। তবে খুব বেশি সময় ধরে নবজাতককে জলে না রাখাই ভালো।

গোসল আগে-পরে

স্নানের আগে বা পরে তেল মালিশ করতে হবে এমন কোনো নিয়ম নেই। শিশুর বয়স ১৫ দিন পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত তার ত্বকে কোনো ধরনের তেল, লোশন বা পাউডার লাগানো ঠিক নয়।

গোসল করালে ঠান্ডা লাগবে?

স্নান করালে শিশুর ঠান্ডা লেগে যাবে, বিষয়টা এমন নয়। কোনো কোনো শিশুর সহজেই ঠান্ডা লেগে যাওয়ার প্রবণতা থাকে, তাদের খুব বেশি সময় জলের সংস্পর্শে রাখা ঠিক নয়। অন্যদের জন্য এমন কোনো নিয়মও নেই। শিশুকে নিয়মিত স্নান করালে সেটি যেমন তাকে পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে, তেমনি আবার নিয়মিত স্নানে শিশু আরামবোধ করে।

শিশুর জন্য সময় ও কাল

গরমের সময় শিশুদের প্রতিদিন স্নান করিয়ে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা প্রয়োজন। শীতের সময়টায় শীতের প্রকোপ যখন বেশি থাকে, তখন একটু বেশি দিনের বিরতি দেওয়া যায়। অনেক সময় অসুস্থতার কারণেও ২-১ দিন স্নান বাদ যেতে পারে। তবে স্নান না করালেও মাথাটা একটু ধুয়ে দেওয়া এবং শরীর ভালোভাবে মুছিয়ে দেওয়া প্রয়োজন। গরমের সময় একটু বেশিক্ষণ স্নান করালে অসুবিধা নেই। তবে ঠান্ডা আবহাওয়ায় খুব বেশিক্ষণ ধরে শিশুকে স্নান করাবেন না।

নির্দিষ্ট সময় রাখুন

প্রতিদিন শিশুকে একটি নির্দিষ্ট সময়ে স্নান করানো ভালো। দিনের বেলা শিশুর স্নানের জন্য ভালো। তবে কর্মজীবী মায়েরা সকালের তাড়াহুড়ায় শিশুকে স্নান করাতে না পারলে অফিস থেকে ফিরে প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময়ে স্নান করালেও সমস্যা হবে না। তবে যে বেলাতেই স্নান করানো হোক না কেন, শিশুর জন্য অবশ্যই কুসুম গরম জল ব্যবহার করুন।

সাবান-শ্যাম্পু রোজ?

শিশুর ত্বকের উপযোগী সাবান ব্যবহার করলে শিশুর ত্বক শুষ্ক হয় না। তাই প্রয়োজনে রোজ সাবান লাগাতে পারেন। শিশুর উপযোগী শ্যাম্পু ব্যবহারেও কোনো বাধা নেই।

খাওয়ার সঙ্গে স্নানের সম্পর্ক নেই

স্নানের সময় শিশু খালি পেটে আছে বা ভরা পেটে আছে, এর সঙ্গে সুস্বাস্থ্যের কোনো সম্পর্ক নেই। সুস্থ শিশুর স্নানে মূলত তেমন কোনো বিধিনিষেধ নেই।


© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত