বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০

সন্তানকে মানুষ হিসাবে গড়ে তুলতে মায়ের ভূমিকা

শিশুর সাথে সময় কাটান। তাকে গল্পের বই পড়ে শুনানো, একসাথে কিছু তৈরি করা, স্কুলে আজকে কি হল সেই গল্প করা ইত্যাদি নানাভাবে আপনি তাকে সময় দিতে পারেন।

শিশুদের কাজের প্রশংসা করতে হবে। ধরুন তাকে কিছু নিয়ে আসতে বললেন, শিশুটি নিয়ে আসলো, তার কাজের জন্য বাহাবা দিন, প্রশংসা করুন, উৎসাহিত করুন।

অবশ্যই খাবার টেবিলে একসাথে সবাই মিলে খান। খেতে খেতে গল্প করুন পরিবারের সবাই মিলে। গবেষণায় দেখা গেছে যেসব পরিবার একসাথে খাবার খায় তাদের সন্তানরা বড় হয়ে পারিবারিক জীবনে সুখি হয়।

কখনও নিজের শিশুকে অন্যর শিশুর সাথে তুলনা করবেন না। পরীক্ষায় কেন অন্যর চেয়ে খারাপ করলো, অমুক বিষয়ে কেন কম নাম্বার পেলো – এরকম বিষয়গুলোতে মায়েরাই বেশি একটিভ থাকে। ছোটবেলা থেকে অপরের সাথে তুলনা করা, সন্তানকে প্রতিনিয়ত কম্পিটিশনের দিকে ঠেলে দিয়ে শিশুকে বড় হয়ে সুখি এবং আত্মবিশ্বাসী হওয়ার সুযোগ কমিয়ে দিচ্ছেন।

শিশুকে ইচ্ছার স্বাধীনতা দিন। কিন্তু যা করা তার জন্য খারাপ সেটি করা থেকে বিরত রাখুন। ধমক দিয়ে নয়, বুঝিয়ে।

শিশুকে অল্প বয়স থেকেই দায়িত্ব নিতে শেখান। নিজের রুম গুছিয়ে রাখা, নিজের জিনিসপত্র ঠিক মতো রাখা, নিজের খাবার নিজে খাওয়া, গোসল করা ইত্যাদি যেন আপনার শিশু ৩-৪ বছর বয়সেই নিজে নিজে করতে শেখে। একটু বড় হলে ঘরের কাজেও টুকটাক সাহায্য করা। এমনকি ছেলে হলেও তাকে রান্নার কাজে সাহায্য করতে বলুন।

বাবার মতো মায়েরাও সন্তানের মডেল। আপনি যদি বাসার কাজের মেয়েটার সাথে ভালো ব্যবহার করেন, সেও তাকে সম্মান দিবে। যেই গুণাবলি আপনি সন্তানের মধ্যে দেখতে চান সেটি নিজে অভ্যাস করুন। শিশু আপনাকে অনুসরণ করে, আপনার কথাকে নয়।


©  দেশবার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত