সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে দু’পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ : আহত ২০

আবির হাসান মানিক, তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দুই পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে শিশু, নারী পুরুষ সহ অন্তত ২০জন আহত হয়েছে। সংঘর্ষে লিপ্ত উভয় পক্ষের গুরুতর আহত অন্তত ১২জন কে তাহিরপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আঘাতের মাত্রা বেশী হওয়ায় সজিবুল (২৫), সূর্য রাজা, আল আমীন ও মোছা. ফেরদৌস আরা বেগম নামে ৪জন কে উন্নত চিকিৎসার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আহতদের মধ্যে অন্যদেরকে স্থানীয় বাজারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। শনিবার বিকাল ৩টার দিকে এই সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলা শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের দুধের আউটা গ্রামের মাইজবাড়ী ও মড়ল বাড়ীর লোকজনের মধ্যে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত দুই পক্ষের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দুধের আউটা গ্রামের মাইজবাড়ীর তাজুদ আলী, মল্লিক মিয়া ও মড়লবাড়ীর পেয়ার আলী, নুরুল হকের লোকজনের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে আধিপাত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার দুপুরে দুধের গ্রামের পিছনের সড়কে পেয়ার আলীর লোকজন প্রথমে তাজুদ আলীর পক্ষের আব্দুল হালিম কে মারপিট আহত করে। একইদিনে কিছুক্ষন পর বালিয়াঘাট নতুন বাজারে তাজুদ আলীর লোকজন পেয়ার আলীর পক্ষের সজল মিয়া নামে একজন কে মারপিট করে। এরই জের ধরে দুধের আউটা গ্রামে দুই পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ঘন্টা ব্যাপি সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। এতে উভয় পক্ষের গরুতর আহতরা হলেন, সজিবুল (২৮), আকির হোসেন (১০), আল আমিন (২৫), সরুজ আলী (৩৫), নুর হোসেন (২৫) সনু মিয়া (৩৭), আবুল খায়ের (২৫), বাশার মিয়া (২২), আরিফ মিয়া (২৭), হাবিব মিয়া (৩০), মোছা. মণি আক্তার। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নেয়।
তাহিরপুর থানার ওসি মোহাম্মদ আতিকুর রহমান জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে দ্রুত পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্ততি চলছে।


© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত