সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২

হাসান হামিদ-এর কবিতা : একটা সারাদিনের গল্প

একটা সারাদিন কেটে যায় বোধের অন্তরীক্ষে, অলসতায়।
ধীরে ধীরে ক্ষয়ে পড়ে মিনিট-সেকেন্ডের দাগগুলো;
আমি হেসে হেসে ভেসে চলি অকারণেই অযথা পাপে।
মটরশুঁটি ক্ষেতে পত্রসভ্যতার মাংসের সংগীত গেয়ে
ভালোবাসতে শিখেছি সূর্য আর চাঁদকে,
একটা সারাদিন পাপ-পূণ্যে কেটে যায় অশালীন;
হাতমোজা হাতে পিচুটি জমা চোখের চশমার কাচ মুছে
কেটে যায় একটা সারাদিন,
অসভ্য সভ্যতার হিংস্র হিসাব মিলাতে মিলাতে বয়ে যায় সময়।
একটা সারাদিন কেটে যায় ভাব আর অভাবনায়।
আমি দুলে উঠি অপ্রয়োজনীয় ভালোবাসার বেসাতি শুনে;
একটা মেঘময় সময় কেটে যায় অনেকের সাথেই;
তবুও একাকী লাগে, একাই ফুটে যায় বসন্তের শিমুল;
আমি রক্ত ভেবে শিউরে উঠি !
একটা সারাদিন কেটে যায় কষ্টের রোদে গলে,
জলের উপর দিয়ে হাঁটতে হাঁটতে কেটে যায়
কেবলি নিজস্ব কয়েক সেকেন্ড।
একদিন ভেবেছিলাম,
তারচে রাত্রির কাঁধে বয়ে আমি
অন্ধ নারীর নির্লজ্জতাটুকু কেড়ে নেবো,
তারচে চলে যাই চূড়ান্ত ফণিমনশার জীবন জলসায়,
তাতে অন্তত একটা সারাদিন কেটে যাবে
অত্যাচার আর ভালোবাসার ভিতর।
একটা সারাদিন কেটে যায় জলের শুকনো মুখ দেখে,
একটা সারাদিন আমি নিচে নামতে নামতে পাতালে নেমেছি;
জানি, মন আমার অন্য দেহে, অন্য প্রবন্ধে।
আমি আলোহীন হয়ে মুখ থুবড়ে পড়ে থাকি
একটা সারাদিন!

একদিন আচমকা বৃষ্টি দেখে
মনে পড়ে গেলো তোমার কথা;
আমি আস্তে আস্তে নিভে গেলাম।
একটা সারাদিন কেটে যায়
আকাশে নাশপাতি আর চন্দনের ছায়া চিনতে চিনতে,
স্নিগ্ধ করুণায় শিখে ফেলা ভালোবাসা ভুলতেও
কেটে যায় পুরো একটা সারাদিন।


© 2022 - Deshbarta Magazine. All Rights Reserved.